এগিয়ে বাংলাদেশ...

এগিয়ে বাংলাদেশ...

ভারত-পাকিস্তানের প্রায় দুই যুগ পর স্বাধীন হয় বাংলাদেশ। যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশের অর্থনৈতিক যাত্রা মসৃণ ছিলো না তাদের মতো। তবুও অর্থনীতির নানা সূচকে বহু আগেই পেছনে ফেলেছে পাকিস্তানকে। আর ১০ গুণ বড় অর্থনীতির দেশ ভারতকে সব সূচকে হারাতে না পারলেও, বিজয়ের ৪৯তম বছরে মাথাপিছু আয়ে ছাড়িয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ।

৯ মাস যুদ্ধের পর বলতে গেলে কিছুই ছিলো না। ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছিলো রাস্তাঘাট-ঘরবাড়ি-যোগাযোগ ব্যবস্থা। যাত্রাকালে সেই ১৯৭২ সালে দেখা দেয় উচ্চ মূল্যস্ফীতি আর খাবারের অভাব; বৈদেশিক ভাণ্ডারও ছিল শূন্য।

সেই বাংলাদেশই এখন বিশ্বের অন্যতম উদীয়মান অর্থনীতির দেশ। যাদের কাছ থেকে স্বাধীনতা ছিনিয়ে এনেছিল, সেই পাকিস্তানই এখন আর্থ-সামাজিক সব সূচকেই পিছিয়ে পড়েছে বাংলাদেশের চেয়ে। শুধু তাই নয়, স্বাধীনতার ৭৩ বছরে ভারত-পাকিস্তান যা পারেনি, বাংলাদেশ তা করে দেখিয়েছে মাত্র ৪৯ বছরে।

জিডিপি প্রবৃদ্ধির দিক থেকে তিন দেশের মধ্যে শীর্ষে বাংলাদেশ। মাথাপিছু জিডিপির ক্ষেত্রে পাকিস্তানকে টপকে গেছে বহু আগেই। আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের তথ্য বলছে, ২০২০ সালে বাংলাদেশের মাথাপিছু আয় হবে ১ হাজার ৮৮৮ ডলার; যেখানে ভারতের হবে ১ হাজার ৮৭৭ ডলার।

একটা সময় ছিলো যখন দেশে চিকিৎসা এবং সচেতনতার অভাবে শিশু মৃত্যুহার ছিলো অনেক বেশি। ৪৯ বছরে এক্ষেত্রে অবাক করার মতো উন্নতি করেছে বাংলাদেশ। প্রতি ১০০০ জনে ভারতে শিশু মৃত্যুর হার যেখানে ৩০ আর  পাকিস্তানে ৫৮; সেখানে বাংলাদেশে মাত্র ২২জন।

শিক্ষার হারের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ, ভারত থেকে কিছুটা পিছিয়ে থাকলেও, এগিয়ে আছে পাকিস্তানের চেয়ে। শিশুদের জন্য নিরাপদ পরিবেশ তৈরির ক্ষেত্রেও শীর্ষে বাংলাদেশ।

আয়তন বিবেচনায় ভারত-পাকিস্তানের চেয়ে বেশি জনবহুল হলেও, জন্ম নিয়ন্ত্রন হারে এগিয়ে বাংলাদেশ। গড় আয়ুর ক্ষেত্রেও বাংলাদেশ থেকে পিছিয়ে ভারত-পাকিস্তান।

দারিদ্র্যসীমা বিবেচনায় তিন দেশের মধ্যে খুব বড় পার্থক্য না থাকলেও, দারিদ্র্য বিমোচনে বিশ্বের রোল মডেল এখন বাংলাদেশ। আর মাথাপিছু সঞ্চয়ের দিক থেকেও ভারত কিংবা পাকিস্তানের ওপরে বাংলাদেশ।

দেশের অর্থনৈতিক অগ্রযাত্রায় সবচেয়ে বড় ভূমিকা বিদ্যুৎ খাতের। বিদ্যুতের সুবিধাভোগীর হারেও ভারত-পাকিস্তানকে পেঠনে ফেলেছে বাংলাদেশ।

তৈরি পোশাক রপ্তানিতেও ভারত পাকিস্তান থেকে এগিয়ে বাংলাদেশ। রপ্তানি আর প্রবাস আয়ে ভর করে বিজয়ের ৪৯ বছরে এসে পাকিস্তানের তুলনায় দ্বিগুণ হয়েছে বাংলাদেশের বৈদেশিক মুদ্রার মজুদ।

ক্যাটেগরী: অর্থনীতি

ট্যাগ: অর্থনীতি

অর্থনীতি বিশ্লেষণ, বিবি বুধ, ডিসেম্বর ১৬, ২০২০ ৪:৫৬ অপরাহ্ন

Comments (Total 0)