স্বর্ণের দাম বাড়ছে কেন?

স্বর্ণের দাম বাড়ছে কেন?

করোনাকালে প্রায় সব বিলাসপণ্যের চাহিদা কমেছে। তাই কমেছে দামও। কিন্তু স্বর্ণের বেলায় দেখা যাচ্ছে উল্টোচিত্র। বছরখানেকের ধারাবাহিকতা ধরে রেখে আবার বদলে গেছে দাম। স্বর্ণ কিনতে বাড়তি খরচ করতে হবে।

দাম বৃদ্ধির কারণ হিসেবে বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি (বাজুস) জানিয়েছে, করোনা সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ, মার্কিন প্রেসিডেন্টের ক্ষমতা হস্তান্তরের জটিলতা এবং তেলের দাম নিম্নমুখী হওয়া- এসব কারণে বিশ্ববাজারে স্বর্ণের দামে অস্থিরতা তৈরি হয়েছে। তাই আন্তর্জাতিক বাজারের সঙ্গে সমন্বয় করে দাম বাড়ানো হয়েছে।

এদিকে বিবিসি বাংলার এক প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, কভিড-নাইনটিনের সময় বিনিয়োগের আস্থা পাচ্ছে না মানুষ। এ পরিস্থিতিতে অনেকেই নিরাপদ বিনিয়োগ হিসেবে দেখছে স্বর্ণ। কারণ এখানে লোকসানের ঝুঁকি নেই বললেই চলে।

 

দাম বৃদ্ধির হালচাল

নতুন বছরের শুরুতে প্রতি ভরি স্বর্ণ কিনতে গুনতে হবে বাড়তি ১ হাজার ৯৮৩ টাকা। ৬ জানুয়ারি বুধবার থেকে সারাদেশে কার্যকর হয়েছে এই নতুন দর। স্বর্ণের মূল্যবৃদ্ধির এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাজুস।

নতুন দর অনুযায়ী, ২২ ক্যারেটের এক ভরি স্বর্ণের দাম দাঁড়ালো ৭৪ হাজার ৬৫০ টাকা। এছাড়া ২১ ক্যারেট স্বর্ণ ৭১ হাজার ৫০০ টাকা, ১৮ ক্যারেট ৬২ হাজার ৭৫২ টাকা এবং সনাতন পদ্ধতির সোনার অলংকারের ভরি বিক্রি হচ্ছে ৫২ হাজার ৪৩০ টাকায়। তবে রুপার দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।

উল্লেখ্য যে, বাংলাদেশের বাজারে গত বছরের জানুয়ারি থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত ১৪ বার স্বর্ণের দাম পরিবর্তন হয়েছে। তার মধ্যে আটবার বেড়েছে, কমেছে ৬ বার। গত ২ ডিসেম্বর স্বর্ণের দাম ভরিতে ১ হাজার ১৬৬ টাকা কমিয়েছিল বাজুস।

#তমহ/বিবি/০৮-০১-২০২১

ক্যাটেগরী: ব্যবসা

ট্যাগ: ব্যবসা

ব্যবসা ডেস্ক, বিবি শুক্র, জানুয়ারী ৮, ২০২১ ২:২৪ অপরাহ্ন

Comments (Total 0)