নেটো সম্মেলন শুরু

নেটো সম্মেলন শুরু

জোটের ৭০ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর দুইদিনের সম্মেলনে যোগ দিয়েছেন বিশ্ব নেতারা নেতারা। । লন্ডনে আয়োজিত এ সম্মেলনের উদ্বোধনী বক্তব্যে যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন জোটের সংহতির নীতি সব সদস্যদেরকে মনে করিয়ে দেওয়ার পরও উত্তেজনার আবহেই বৈঠক শুরু করেছেন নেটো নেতারা।

তিনঘণ্টার বৈঠকে সাইবার হামলা এবং চীনের কৌশলগত হুমকির মত বিষয় নিয়ে আলোচনা করার কথা রয়েছে তাদের। কিন্তু সম্মেলনের প্রথম দিনে আলোচনার শুরুতেই সদস্যদেশগুলোর নেতাদের মধ্যে নানা বিষয় নিয়ে মতোবিরোধ দেখা গেছে। সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে তুরস্কের সাম্প্রতিক অভিযান, সামরিকখাতে সদস্যদেশগুলোর ব্যয় এবং নেটো জোট সম্পর্কে ফরাসি প্রেসিডেন্টের বিরূপ মন্তব্য নিয়ে নেতারা তর্কাতর্কি করেছেন।

নেটোর ভূমিকা, তুরস্ক এবং ইসলামিক স্টেট (আইএস) যোদ্ধাদের নিয়েও একটি সংবাদ সম্মেলনে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প এবং ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রোঁর মধ্যে উত্তেজনা দেখা গেছে। কর এবং বাণিজ্য নিয়ে দু নেতার সম্পর্ক এমনিতেও টানাপোড়েনের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে।

তাছাড়া, অন্যান্য দেশগুলোর নেতাদের কাছেও ট্রাম্প এখনো হাসি-ঠাট্টা, বিদ্রুপের পাত্র। এবারের নেটো সম্মেলনে সমবেত কয়েকজন নেতাকে ট্রাম্পকে নিয়ে হাসাহাসি, উপহাস করতে দেখা গেছে। তাদের অজ্ঞাতেই সে দৃশ্য ধরা পড়েছে ক্যামেরায়। মঙ্গলবার সন্ধ্যার সে ভিডিও কানাডার সম্প্রচারমাধ্যম সিবিএস প্রকাশ করেছে।

নর্থ আটলান্টিক ট্রিটি অরগানাইজেশন (নেটো) মাত্র ১২ সদস্য নিয়ে যাত্রা শুরু করেছিল ১৯৪৯ সালে। সেই জোটে সদস্যসংখ্যা বাড়তে বাড়তে ২৯ এ পৌঁছেছে। স্বাভাবিকভাবেই জোটে এতগুলো সদস্যর মধ্যে সংহতি বজায় থাকাও কঠিন হয়ে পড়েছে।

এবারের নেটো সম্মেলনে কেবল সদস্যদেশগুলোর প্রতিরক্ষা ব্যয়ই নয় বরং তুরস্কের সঙ্গে অন্যান্য সদস্যদেশগুলোর সম্পর্কের বিষয়টিও গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হয়ে দেখা দিয়েছে। তুরস্ক সিরিয়ায় অভিযান শুরুর পর থেকেই নেটোর অন্যান্য সদস্যদের সঙ্গে দেশটির সম্পর্ক জটিল হয়েছে। তাছাড়া, তুরস্কের কুর্দি ওয়াপিজি মিলিশিয়াকে ‘সন্ত্রাসী সংগঠন’ হিসাবে চিহ্নিত করার দাবির সঙ্গেও অন্যান্য দেশগুলো একমত নয়।

#এসএস/বিবি/০৪-১২-২০১৯

ক্যাটেগরী: বিশ্ব

ট্যাগ: বিশ্ব

বিশ্ব ডেস্ক, বিবি বৃহঃ, ডিসেম্বর ৫, ২০১৯ ৮:৫৮ পূর্বাহ্ন

Comments (Total 0)